বরিশাল ক্রাইম নিউজ ডট কমবানারীপাড়া উপজেলা ছাত্রলীগ সভপতিকে ধরিয়ে দিলেন সাদিক আব্দুল্লাহ! - বরিশাল ক্রাইম নিউজ ডট কম
শুক্রবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৮, , সকাল ৮:৫৫

আপডেটঃ জুলাই ১৬, ২০১৭ ১০:০৭ অপরাহ্ণ
A- A A+ Print

বানারীপাড়া উপজেলা ছাত্রলীগ সভপতিকে ধরিয়ে দিলেন সাদিক আব্দুল্লাহ!

বরিশালে নববধূকে ধর্ষণের অভিযোগের মামলায় বানারীপাড়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সুমন মোল্লাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

রবিবার রাতে তাকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বানারীপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাজ্জাদ হোসেন।

ওসি জানান, নববধূকে ধর্ষণের অভিযোগের মামলায় প্রধান আসামি সুমন মোল্লাকে খুঁজছিল পুলিশ। এসময় মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ বরিশাল নগরীতে তাকে দেখতে পেয়ে পুলিশকে জানালে সুমন মোল্লাকে আটক করা হয়।

উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে এক নববধূকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলাটি করা হয় রবিবার দুপুরে। মামলায় উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সুমন মোল্লার নাম উল্লেখ করে ৪/৫ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

তবে সুমন মোল্লা এ বিষয়টিকে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের একটি চক্রান্ত বলে দাবি করেছেন।

ভিকটিমের বরাত দিয়ে বানারীপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. সাজ্জাদ হোসেন ঢাকাটাইমসকে  জানান, ভিকটিম নোয়াখালী জেলার বাসিন্দা। কাজের সুবাদে তিনি চট্টগ্রামে থাকতেন। সেখানে এক অটোচালকের সাথে পরিচয় হয়। পরে তাকে বিয়ে করেন। তবে অটোচালকের এটি দ্বিতীয় স্ত্রী। সেই চালক বেতাল গ্রামে নানাবাড়িতে দ্বিতীয় স্ত্রীকে নিয়ে ৭/৮ দিন আগে আসেন। খবর পেয়ে সুমন মোল্লা ও তার সহযোগীরা ওই বাড়িতে গিয়ে ২০ বছরের মেয়েটি ও তার স্বামীকে ধরে নিয়ে যায়। পরে মেয়েটিকে পাশের একটি বাড়িতে নিয়ে সুমন ধর্ষণ করেন বলে মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে।

 

 বরিশাল ক্রাইম নিউজ ডট কম

বানারীপাড়া উপজেলা ছাত্রলীগ সভপতিকে ধরিয়ে দিলেন সাদিক আব্দুল্লাহ!

রবিবার, জুলাই ১৬, ২০১৭ ৯:৫০ অপরাহ্ণ | আপডেটঃ জুলাই ১৬, ২০১৭ ১০:০৭ অপরাহ্ণ

বরিশালে নববধূকে ধর্ষণের অভিযোগের মামলায় বানারীপাড়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সুমন মোল্লাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

রবিবার রাতে তাকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বানারীপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাজ্জাদ হোসেন।

ওসি জানান, নববধূকে ধর্ষণের অভিযোগের মামলায় প্রধান আসামি সুমন মোল্লাকে খুঁজছিল পুলিশ। এসময় মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ বরিশাল নগরীতে তাকে দেখতে পেয়ে পুলিশকে জানালে সুমন মোল্লাকে আটক করা হয়।

উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে এক নববধূকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলাটি করা হয় রবিবার দুপুরে। মামলায় উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সুমন মোল্লার নাম উল্লেখ করে ৪/৫ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

তবে সুমন মোল্লা এ বিষয়টিকে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের একটি চক্রান্ত বলে দাবি করেছেন।

ভিকটিমের বরাত দিয়ে বানারীপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. সাজ্জাদ হোসেন ঢাকাটাইমসকে  জানান, ভিকটিম নোয়াখালী জেলার বাসিন্দা। কাজের সুবাদে তিনি চট্টগ্রামে থাকতেন। সেখানে এক অটোচালকের সাথে পরিচয় হয়। পরে তাকে বিয়ে করেন। তবে অটোচালকের এটি দ্বিতীয় স্ত্রী। সেই চালক বেতাল গ্রামে নানাবাড়িতে দ্বিতীয় স্ত্রীকে নিয়ে ৭/৮ দিন আগে আসেন। খবর পেয়ে সুমন মোল্লা ও তার সহযোগীরা ওই বাড়িতে গিয়ে ২০ বছরের মেয়েটি ও তার স্বামীকে ধরে নিয়ে যায়। পরে মেয়েটিকে পাশের একটি বাড়িতে নিয়ে সুমন ধর্ষণ করেন বলে মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে।

 

সম্পাদক ও প্রকাশক : খন্দকার রাকিব ।
ফকির বাড়ি, ৫৫৪৫৪ বরিশাল।
মোবাইল: ০১৭২২৩৩৬০২১
ইমেইল : rakibulbsl@gmail.com, barisalcrimenews@gmail.com