বরিশাল ক্রাইম নিউজ ডট কমমেয়র পুত্রের গরুর খামার-দেখভাল করেন সিটি কর্পোরেশনের কর্মচারীরা - বরিশাল ক্রাইম নিউজ ডট কম
বৃহস্পতিবার, ২১ জুন, ২০১৮, ৭ আষাঢ়, ১৪২৫, ৮ শাওয়াল, ১৪৩৯, সকাল ১০:৫৭

আপডেটঃ সেপ্টেম্বর ০৮, ২০১৬ ১:৪৯ পূর্বাহ্ণ
A- A A+ Print

মেয়র পুত্রের গরুর খামার-দেখভাল করেন সিটি কর্পোরেশনের কর্মচারীরা

খন্দকার রাকিব…
বিসিসি’র মেয়র আহসান হাবিব কামাল এর ছেলে রুপম এর গরুর খামার দেখভাল করার দায়িত্ব পালন করে সিটি কর্পোরেশনের কর্মচারীরা। নগররীর ২৭নং ওয়ার্ড কাশিপুর এলাকার মাসুদ রাঢ়ীর খামারে গিয়ে এমন চিত্র দেখা যায়। জানাযায়, বিসিসি মেয়র কামাল এর পুত্র রুপম তার দুই বন্ধু মাসুদ রাঢ়ী ও ইমন মিলে কুরবানি উপলক্ষ্যে ৪০টি ষাড় গরু ক্রয় করে প্রায় ৫ মাস পূর্বে মাসুদ রাঢ়ীর ফার্মে রাখে । কিন্তু ৪০টি ষাড় গরুর দেখভাল করার জন্য ৫ জন কর্মচারীর প্রয়াজন পরে। আর তাতে অনক টাকা খরচ হয়। তারা টাকা খরচ না করে সিটি কর্পোরেশন থেকে ৪ জন কর্মচারী নিয়ে খামারের কাজ করান তারা। তবে সিটি কর্পোরেশন থেকে মেয়র পুত্র রুপমই কর্মচারী নিয়ে কাজ করান বলে খামারে কর্তব্যরত কর্মচারিরা জানান। সুশীল সমাজের মতে যেই শহরে রাস্তার ময়লা সারানোর জন্য পর্যাপ্ত জনবল নেই সেই শহরে মেয়র পুত্রের খামারে কাজ করানো হচ্ছে সিটি কর্পোরেশনের কর্মচারী দ্বারা। এনিয়ে নগরবাসির মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। সরেজমিনে গিয়ে দেখাযায় মেয়র পুত্র রুপম এর খামারে কাজ করছে সিটি কর্পোরেশনের কর্মচারী আঃ জলিল। আঃ জলিলের দাবি তিনি সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসনিক শাখায় কাজ করেন কিন্তু তাকেসহ মান্নান ও আরও দুজন দিয়ে খামারের কাজ করানাে হয়। ঐ খামারের ম্যানজার মানিক ও সিটি কর্পােরেশনের কর্মচারী আঃ জলিল এর কাছে জানতে চাইলে তারা জানায় গত ৫ মাস পর্য মেয়র স্যারের ছেলে এখানে ৪০টি গরুর দেখভাল করার দায়িত্ব দেন তাদের। ঐ খামারে মােট কত জন সিটি কর্পােরেশনের কর্মচারী কাজ করে জানতে চাইলে তারা জানান খামারে মােট ৫ জন সিটি কর্পােরেশনের কর্মচারী কাজ করে। তাদের দাবি এই ৪০টি ষাড় গরু মেয়র পুত্র রুপম তার বন্ধু ইমন ও মাসুদ রাঢ়ী মিলেই পালেন। কিন্তু মাসুদ রাঢ়ীর কাছে এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান খামারও আমার আর খামারের সব গরুও আমার। কিন্তু তার কাছে খামারে সিটি কর্পােরেশনের কর্মচারী দিয়ে কাজ করানাের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি তার স্ত্রী অসুস্থ বলে ফােনটা কেটে দেন। এ ব্যাপার স্থানীয় তছলিম নামের এক ব্যক্তি জানায় গত ৫ মাস যাবত মাসুদ রাঢ়ীর ফার্মে ৪০ থেকে ৫০টি ষাড় গরু সিটি কর্পােরেশনের কর্মচারী দিয়ে দেখভাল করান। ষাড় গরুর মালিক মেয়র এর ছেলে রুপম। এ ব্যাপার মহানগর যুবলীগ এর সদস্য সােয়েব আহাদ সিজান জানায়, দীর্ঘ ৪ থেকে ৫ মাস পর্যন্ত মাসুদ রাঢ়ীর ফার্মে ৪০টি ষাড় গরু পালে মেয়র পুত্র রুপম। আর ষাড় গরুর দেখভাল করেন সিটি কর্পােরেশনের কর্মচারীরা। এনিয় কেউ কিছু বলতে গেলে মেয়রকে দিয়ে জেলে পাঠানাের ভয় দেখায় রুপম। এ ব্যাপার ১৪নং ওয়ার্ড যুবলীগ এর সাধারন সম্পাদক আজিজুর রহমান সুমন সিটি কর্পােরেশনের লােক দিয়ে মেয়র পুত্র রুপমের গরুর খামারে কাজ করানাের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

সুত্র: দৈনিক আজকের বরিশাল

 বরিশাল ক্রাইম নিউজ ডট কম

মেয়র পুত্রের গরুর খামার-দেখভাল করেন সিটি কর্পোরেশনের কর্মচারীরা

বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৬ ১২:২৭ পূর্বাহ্ণ | আপডেটঃ সেপ্টেম্বর ০৮, ২০১৬ ১:৪৯ পূর্বাহ্ণ

খন্দকার রাকিব…
বিসিসি’র মেয়র আহসান হাবিব কামাল এর ছেলে রুপম এর গরুর খামার দেখভাল করার দায়িত্ব পালন করে সিটি কর্পোরেশনের কর্মচারীরা। নগররীর ২৭নং ওয়ার্ড কাশিপুর এলাকার মাসুদ রাঢ়ীর খামারে গিয়ে এমন চিত্র দেখা যায়। জানাযায়, বিসিসি মেয়র কামাল এর পুত্র রুপম তার দুই বন্ধু মাসুদ রাঢ়ী ও ইমন মিলে কুরবানি উপলক্ষ্যে ৪০টি ষাড় গরু ক্রয় করে প্রায় ৫ মাস পূর্বে মাসুদ রাঢ়ীর ফার্মে রাখে । কিন্তু ৪০টি ষাড় গরুর দেখভাল করার জন্য ৫ জন কর্মচারীর প্রয়াজন পরে। আর তাতে অনক টাকা খরচ হয়। তারা টাকা খরচ না করে সিটি কর্পোরেশন থেকে ৪ জন কর্মচারী নিয়ে খামারের কাজ করান তারা। তবে সিটি কর্পোরেশন থেকে মেয়র পুত্র রুপমই কর্মচারী নিয়ে কাজ করান বলে খামারে কর্তব্যরত কর্মচারিরা জানান। সুশীল সমাজের মতে যেই শহরে রাস্তার ময়লা সারানোর জন্য পর্যাপ্ত জনবল নেই সেই শহরে মেয়র পুত্রের খামারে কাজ করানো হচ্ছে সিটি কর্পোরেশনের কর্মচারী দ্বারা। এনিয়ে নগরবাসির মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। সরেজমিনে গিয়ে দেখাযায় মেয়র পুত্র রুপম এর খামারে কাজ করছে সিটি কর্পোরেশনের কর্মচারী আঃ জলিল। আঃ জলিলের দাবি তিনি সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসনিক শাখায় কাজ করেন কিন্তু তাকেসহ মান্নান ও আরও দুজন দিয়ে খামারের কাজ করানাে হয়। ঐ খামারের ম্যানজার মানিক ও সিটি কর্পােরেশনের কর্মচারী আঃ জলিল এর কাছে জানতে চাইলে তারা জানায় গত ৫ মাস পর্য মেয়র স্যারের ছেলে এখানে ৪০টি গরুর দেখভাল করার দায়িত্ব দেন তাদের। ঐ খামারে মােট কত জন সিটি কর্পােরেশনের কর্মচারী কাজ করে জানতে চাইলে তারা জানান খামারে মােট ৫ জন সিটি কর্পােরেশনের কর্মচারী কাজ করে। তাদের দাবি এই ৪০টি ষাড় গরু মেয়র পুত্র রুপম তার বন্ধু ইমন ও মাসুদ রাঢ়ী মিলেই পালেন। কিন্তু মাসুদ রাঢ়ীর কাছে এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান খামারও আমার আর খামারের সব গরুও আমার। কিন্তু তার কাছে খামারে সিটি কর্পােরেশনের কর্মচারী দিয়ে কাজ করানাের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি তার স্ত্রী অসুস্থ বলে ফােনটা কেটে দেন। এ ব্যাপার স্থানীয় তছলিম নামের এক ব্যক্তি জানায় গত ৫ মাস যাবত মাসুদ রাঢ়ীর ফার্মে ৪০ থেকে ৫০টি ষাড় গরু সিটি কর্পােরেশনের কর্মচারী দিয়ে দেখভাল করান। ষাড় গরুর মালিক মেয়র এর ছেলে রুপম। এ ব্যাপার মহানগর যুবলীগ এর সদস্য সােয়েব আহাদ সিজান জানায়, দীর্ঘ ৪ থেকে ৫ মাস পর্যন্ত মাসুদ রাঢ়ীর ফার্মে ৪০টি ষাড় গরু পালে মেয়র পুত্র রুপম। আর ষাড় গরুর দেখভাল করেন সিটি কর্পােরেশনের কর্মচারীরা। এনিয় কেউ কিছু বলতে গেলে মেয়রকে দিয়ে জেলে পাঠানাের ভয় দেখায় রুপম। এ ব্যাপার ১৪নং ওয়ার্ড যুবলীগ এর সাধারন সম্পাদক আজিজুর রহমান সুমন সিটি কর্পােরেশনের লােক দিয়ে মেয়র পুত্র রুপমের গরুর খামারে কাজ করানাের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

সুত্র: দৈনিক আজকের বরিশাল

সম্পাদক ও প্রকাশক : খন্দকার রাকিব ।
ফকির বাড়ি, ৫৫৪৫৪ বরিশাল।
মোবাইল: ০১৭২২৩৩৬০২১
ইমেইল : rakibulbsl@gmail.com, barisalcrimenews@gmail.com